untitled-13_211996

চ্যাম্পিয়ন হলেন ঢাকার মেয়ে হৃদি শেখ

বিডিকষ্ট ডেস্ক

ম্যাঙ্গোলি-চ্যানেল আই সেরা নাচিয়ে সিজন-থ্রি-এর চ্যাম্পিয়ন হলেন ঢাকার মেয়ে ফারজানা হৃদি শেখ। রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রের হল অব ফেমে গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় চূড়ান্ত লড়াইয়ে মন মাতানো পারফরম্যান্স, দর্শকদের এসএমএস ভোট আর বিচারকদের রায়ে ছয় প্রতিযোগীকে পেছনে ফেলে সেরার মুকুট জিতেছেন তিনি। পুরস্কার পেয়েছেন এসিআই-ফান চানাচুরের সৌজন্যে একটি চকচকে নতুন গাড়ি। ডায়মন্ড ওয়ার্ল্ডের সৌজন্যে হীরের মুকুটটিও উঠেছে তার মাথায়। হৃদির মাথায় বিজয়ী ক্রাউন পরিয়ে দেন গতবারের চ্যাম্পিয়ন ইভানা। প্রথম রানারআপ হয়েছেন মুন্সীগঞ্জের সিনথিয়া ইয়ামিন নূপুর। পুরস্কার পেয়েছেন তিন লাখ টাকা। দ্বিতীয় রানারআপ রংপুরের উম্মে হাবিবা শোভা পেয়েছেন দুই লাখ টাকা। চূড়ান্ত পর্বের অন্য প্রতিযোগীরা পাবেন ইমপ্রেস অডিও ভিশন থেকে নাচের ডিভিডি-সিডি প্রকাশ ও ইমপ্রেস টেলিফিল্ম প্রযোজিত চলচ্চিত্রে অভিনয় করার সুযোগ। শাস্ত্রীয় নাচের প্রতিষ্ঠান ‘সাধনা’ ও সার্ক উইমেন অ্যাসোসিয়েশন্সের পক্ষ থেকে এক বছরের জন্য নাচের বৃত্তি পেয়েছেন টাঙ্গাইলের মেয়ে সুরাইয়া ইসলাম রিয়া।

গতকাল বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন ইমপ্রেস টেলিফিল্ম ও চ্যানেল আইয়ের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রেজা সাগর, চ্যানেল আইয়ের পরিচালক ও বার্তাপ্রধান শাইখ সিরাজ, এএসটি বেভারেজ লিমিটেডের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ হারুনুর রশীদ এবং এসিআই লিমিটেডের নির্বাহী পরিচালক সৈয়দ আলমগীর, সেরা নাচিয়ের প্রধান দুই বিচারক চিত্রনায়ক ফেরদৌস ও অভিনেত্রী মেহের আফরোজ শাওন। মহাউৎসব পর্বের অতিথি বিচারক চিত্রনায়িকা পূর্ণিমাও উপস্থিত ছিলেন। এর আগে অনুষ্ঠানের শুরুতেই স্বাগত বক্তব্য রাখেন ফরিদুর রেজা সাগর এবং শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন হারুনুর রশীদ।

 

সেরা নাচিয়ে সিজন থ্রি-এর চূড়ান্ত পর্ব যারা সামনা-সামনি বসে দেখার সুযোগ পাননি, তাদের জন্য অনুষ্ঠানটি বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্র থেকে সরাসরি সম্প্রচার হয়েছে চ্যানেল আইয়ের পর্দায়। এফএম রেডিও ভূমি প্রচার করেছে চুম্বক অংশ। মহাউৎসব শুরু হয়েছে সন্ধ্যা সোয়া ৭টায়। এতে রাশিয়ার আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন নৃত্যশিল্পী আনা আলেকজান্ডারিয়ার অনবদ্য কোরিওগ্রাফিতে চূড়ান্ত পর্বের সাত প্রতিযোগী রিয়া, লোটাস, অন্তর, হৃদি, সিনথিয়া, শোভা ও মিতির একটি পরিবেশনা ছিল। জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী কুমার বিশ্বজিতের গাওয়া বেশকিছু ফোক গানের ‘ফোক মেলোডি’ পরিবেশন করেন সেরাকণ্ঠের আশিক, বাংলা গানের শারমিন ও খুদে গানরাজের বিজলী।

লাক্স-চ্যানেল আই সুপারস্টার বিদ্যা সিনহা মিমের দলীয় পরিবেশনা ছিল দৃষ্টিনন্দন ও উপভোগ্য। বাদ যায়নি আগের দুই প্রতিযোগিতার তুষার, শাহেদ, নাঈম, ইভান ও প্রীতমের নৃত্য পরিবেশনা। এ ছাড়া সেরা সাত ফাইনালিস্ট পরিবেশন করেছেন একক নৃত্য। শুধু প্রতিযোগীরা নন, বিচারকরাও নেচেছেন গতকাল। প্রতিযোগিতার প্রধান দুই বিচারক চিত্রনায়ক ফেরদৌস ও অভিনেত্রী মেহের আফরোজ শাওনের অনবদ্য পরিবেশনা মহাউৎসবের ঝলক বাড়িয়েছে অনেক গুণ। অনুষ্ঠানে বিভিন্ন কোরিওগ্রাফি করেছেন ভারত, রাশিয়া ও যুক্তরাজ্যের বেশ কয়েক আমন্ত্রিত কোরিওগ্রাফার। তাদের সঙ্গে ছিল বাংলাদেশের নৃত্য দল সাধনা। দেশের কোরিওগ্রাফারদের মধ্যে ছিলেন তুষার, ইভান, তানজিল, নাঈম ও শাহেদ। প্রতিযোগিতার অপর ফাইনালিস্টরা হলেন জামালপুরের জান্নাতুল ফেরদৌস লোটাস, নোয়াখালীর তাবাসসুম নাবিলা মিতি, টাঙ্গাইলের সুরাইয়া ইসলাম রিয়া ও মাহাতাব হোসেন অন্তর। অনুুষ্ঠান পরিকল্পনা ও পরিচালনায় ছিলেন ইজাজ খান স্বপন।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Anti-Spam Quiz: